স্বামীর সঙ্গে বচসা, মদের সঙ্গে কীটনাশক মিশিয়ে খেয়ে চরম পরিণতি স্ত্রীর
Connect with us

বাংলার খবর

স্বামীর সঙ্গে বচসা, মদের সঙ্গে কীটনাশক মিশিয়ে খেয়ে চরম পরিণতি স্ত্রীর

Published

on

Rate this post

বেঙ্গল এক্সপ্রেস নিউজ: স্বামীর সঙ্গে অশান্তি। মদের সঙ্গে কীটনাশক মিশিয়ে খেয়ে আত্মঘাতী গৃহবধূ। ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার গঙ্গারামপুর থানার উদয় গ্রাম পঞ্চায়েতের খাটিয়াবান্দায়।

পুলিশ সূত্রে খবর, মৃত ওই গৃহবধূর নাম-লতিকা কোল (৩৫)। বাড়ি গঙ্গারামপুরের খাটিয়াবান্দা এলাকায়। এদিকে বিষয়টি জানতে পেরেই গঙ্গারামপুর থানার পুলিশ শুক্রবার দেহটি উদ্ধার করে তা ময়নাতদন্তের জন্য বালুরঘাট জেলা হাসপাতালে পাঠায়। এদিকে গোটা বিষয়টি খতিয়ে দেখে ঘটনার তদন্তে নেমেছে গঙ্গারামপুর থানার পুলিশ।

জানা গিয়েছে, দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার গঙ্গারামপুর থানার উদয় গ্রাম পঞ্চায়েতের খাটিয়াবান্দা এলাকার বাসিন্দা রিতু কোল। পেশায় টোটো চালক। প্রায় ১৬-১৭ বছর আগে গ্রামেরই লতিকা কোলকে প্রেম করে বিয়ে করেন। তাঁদের এক ছেলে ও এক মেয়ে রয়েছে। অভিযোগ, বিয়ের পর থেকে নানা কারণে অকারণে কোল দম্পতির মধ্যে বচসা লেগেই থাকত।

Advertisement

আরও পড়ুন: টিনের বাড়িতে বাস, এখনও অন্যের জমিতে ক্ষেত মজুরি করে সংসার চালান তৃণমূলের পঞ্চায়েত প্রধান!

এদিকে লতিকাও মাঝে মধ্যে মদ্যপান করতেন। যা নিয়ে সংসারে অশান্তি লাগত। বৃহস্পতিবার দুপুরে খাওয়ার জন্য টোটো চালিয়ে বাড়ি যান রিতু। বাড়ির দরজা খোলা থাকলেও স্ত্রীকে ঘরে দেখতে না পেয়ে খোঁজাখুজি করেন তিনি। কিছু পরে পাশের একটি দোকানে স্ত্রীকে দেখতে পান। এদিকে বাড়িতে এসেও খাওবার না পেয়ে স্ত্রীকে বকাবকি করেন। এমনকী, মারধরও করেন বলে অভিযোগ। এরপরই বাড়ি থেকে বেরিয়ে যান তিনি।

অভিযোগ, ঘটনার কিছু পর অভিমানে স্ত্রী প্রথমে মদ্যপান করেন। এরপর জমিতে দেওয়া কীটনাশক খান। সন্ধ্যায় বিষয়টি জানতে পারেন স্বামী। কারণ স্ত্রীর মুখ দিয়ে বের হচ্ছিল কীটনাশকের গন্ধ। বিষয়টি নজরে আসতে সঙ্গে সঙ্গে তাঁকে চিকিৎসার জন্য গঙ্গারামপুর সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে নিয়ে যান স্বামী সহ পরিবারের সদস্যরা। সেখানে ভর্তি করার কিছুক্ষণ পরই লতিকা কোলের মৃত্যু হয়।

Advertisement

আরও পড়ুন: Dooars: পুজোর আগে সুখবর কর্মচারীদের জন্য, ১০ বছর পর খুলছে বন্ধ চা-বাগান

এদিকে বিষয়টি জানতে পেরে বৃহস্পতিবার গঙ্গারামপুর থানার পুলিশ দেহটি উদ্ধার করে তা ময়নাতদন্তের জন্য বালুরঘাট জেলা হাসপাতালে পাঠায়। পরিবার এবং প্রতিবেশীদের প্রাথমিক অনুমান স্বামী বকাবকি ও মারধর করায় অভিমানে আত্মঘাতী হন তিনি। এছাড়াও পুলিশের অনুমান, মদ্যপ অবস্থায় কীটনাশক খেলে হয়তো কষ্ট অনেকটা কম হবে। সেই কারণেই মদ্যপান করেছিলেন। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

আরও পড়ুন: MiG-21: ৬২ বছরে ২০০ প্রাণ নিয়েছে, জানুন মিগ-২১র অভিশপ্ত ইতিহাস

Advertisement

আরও পড়ুন: Uttar Pradesh: পণ না দেওয়ার অপরাধ, স্বামী-দেওর মিলে মহিলাকে ধর্ষনের অভিযোগ

Ads Blocker Image Powered by Code Help Pro

Ads Blocker Detected!!!

We have detected that you are using extensions to block ads. Please support us by disabling these ads blocker.