৭ ঘণ্টা ফেসবুক- হোয়াটসঅ্যাপ বন্ধ থাকার জের, ৬০০ কোটি ডলার খোয়ালেন জুকারবার্গ
Connect with us

আন্তর্জাতিক

৭ ঘণ্টা ফেসবুক- হোয়াটসঅ্যাপ বন্ধ থাকার জের, ৬০০ কোটি ডলার খোয়ালেন জুকারবার্গ

Rate this post

বেঙ্গল এক্সপ্রেস নিউজ : ৭ ঘণ্টায় ৬০০ কোটি ডলারের সম্পদ খোয়ালেন ফেসবুক কর্তা মার্ক জুকারবার্গ। ভারতীয় মুদ্রায় যা প্রায় ৪৪ হাজার ৭৩৪ কোটি টাকা। সোমবার রাত ৯টা থেকে বিশ্ব জুড়ে হঠাৎই স্তব্ধ হয়ে যায় ফেসবুক সহ ওই সংস্থার অধীনে থাকা হোয়াটসঅ্যাপ, মেসেঞ্জার, ইন্সটাগ্রামের পরিষেবা। বিশ্বব্যাপী সার্ভার ডাউন হয়ে যাওয়াতেই এই বিভ্রাট বলে জানানো হয়েছে সংস্থার পক্ষ থেকে। মঙ্গলবার ভোর পর্যন্ত জনপ্রিয় এই সোশ্যাল সাইট গুলোর পরিষেবা বন্ধ থাকায় সমস্যার মধ্যে পড়েন বিশ্বের কোটি কোটি মানুষ।

প্রায় সাত ঘণ্টা সোশ্যাল মিডিয়ার সাইট গুলি বন্ধ থাকায় বিপুল আর্থিক ক্ষতির মুখে পড়েছেন মার্ক জুকারবার্গ। সপ্তাহ খানেক আগেও তাঁর সেই সম্পত্তির পরিমাণ ছিল ১৪০০ কোটি ডলার। এখন তা নেমে এসেছে ১২০০ কোটি ডলারে। সেই সঙ্গে তাঁর সংস্থার শেয়ারও নেমে গিয়েছে অনেকটাই। সোমবার একধাক্কায় ৪.৯ শতাংশ নেমে যায় সংস্থার শেয়ার। সেপ্টেম্বরের মাঝামাঝি থেকে এখনও পর্যন্ত ফেসবুকের মোট শেয়ার নেমেছে ১৫ শতাংশ। এই বিপুল পরিমাণ ক্ষতির পর বর্তমানে জুকেরবার্গের সম্পত্তি কমে দাঁড়িয়েছে ১২ হাজার ১৬০ কোটি ডলার।

ফলে বিশ্বের ধনী ব্যক্তিদের তালিকায় এক ধাপ নেমে গিয়েছেন তিনি। ব্লুমবার্গ বিলিওনার ইন্ডেক্সের প্রকাশিত তালিকা অনুযায়ী, বিল গেটসের নিচে নেমে পঞ্চম স্থানে চলে এসছেন তিনি। মাইক্রোসফট কর্তা বিল গেটস উঠে এসেছেন চার নম্বরে। অ্যাপগুলি সচল হওয়ার কথা জানানোর পাশাপাশি দুঃখ প্রকাশ করে ফেসবুক সিইও জুকারবার্গ জানিয়েছেন, ‘আবার অনলাইন হচ্ছে ফেসবুক, ইন্সটাগ্রাম, হোয়াটসঅ্যাপ ও মেসেঞ্জার। আমি জানি প্রিয় মানুষদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখতে আপনারা আমাদের পরিষেবার উপর কতটা নির্ভরশীল। আজকের এই ঘটনার জন্য দুঃখিত।’ তবে শুধু পরিষেবা বন্ধে কারণেই নয়, ফেসবুকের এই বিপুল ক্ষতির পিছনে রয়েছে এক হুইসলব্ললোয়ার।

Advertisement

ফেসবুকের অনেক গোপন তথ্য সংবাদমাধ্যমের সামনে ফাঁস করে দিয়েছেন তিনি। টাকার জন্য ফেসবুক কী কী করে, সে সব বর্ণনা দেওয়ার পাশাপাশি ফেসবুকের নীতি নিয়ে সমালোচনা করেন এক মহিলা। আর তাতেই বিনিয়োগকারীদের ফেসবুকের ওপর ভরসা কমেছে। তার জেরেই জুকারবার্গের অর্থ কমেছে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

Continue Reading
Advertisement