৫০ কার্তিক নিয়ে মালদায় হল ষড়ানন পুজো!
Connect with us

বাংলার খবর

৫০ কার্তিক নিয়ে মালদায় হল ষড়ানন পুজো!

Rate this post

বেঙ্গল এক্সপ্রেস নিউজ:নিষ্ঠা ও রীতির সঙ্গেই পালিত হল ষড়ানন-এর পুজো। মালদার হবিবপুর থানার ঋষিপুর পঞ্চায়েতের দক্ষিণ চাঁদপুরে দীর্ঘদিন ধরেই হয়ে আসছে এই পুজো। এ বছর ৬৩ তম বর্ষে পড়ল পুজো।বুধবার রাতে পুজোকে ঘিরে প্রচুর ভক্তের সমাগম ঘটে মন্দির প্রাঙ্গণে। রীতি মেনে চার প্রহরের অনুষ্ঠিত হয় কার্তিক পুজো।

এই পুজোর বিশেষ আকর্ষণ হল ষড়ানন-এরপুজো। এই পুজোয় প্রচুর ভক্ত তাঁদের মনস্কামনা পূর্ণ হলে ছোট ছোট কার্তিক মূর্তি দিয়ে থাকেন। এই বছর ৫০ টির বেশি ছোট ছোট কার্তিক মূর্তি দিয়ে পুজো করেন ভক্তরা। শুধু মালদা জেলা নয়, আশেপাশের প্রতিবেশী জেলা থেকেও প্রচুর ভক্তের সমাগম ঘটে এই কার্তিক পুজোয়। পুরাণে কথিত আছে তারকাসুরকে বধ করার জন্য কার্তিকের জন্ম হয়। জন্ম লগ্নে কার্তিক দেখতে খুব সুন্দর ছিল। সেই সময় ৬ জন কৃত্তিকা কার্তিককে লালন-পালনের ইচ্ছা প্রকাশ করে। ৬ জন কৃত্তিকার মনবাসনা পূর্ণ করতে কার্তিক ৬ মাথার রূপ ধারণ করে। সেই থেকেই কার্তিকের আরেক নাম ষড়ানন।

দক্ষিণ চাঁদপুর গ্রামে এই রূপেই পূজিত হন দেবসেনাপতি কার্তিক। ঋষিপুর সার্বজনীন কার্তিকপুজো উপলক্ষে দক্ষিণ চাঁদপুরে প্রতি বছর মেলার আসর বসে। তবে গত দুই বছর ধরে করোনা পরিস্থিতি থাকায় মেলা ও অন্যান্য সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনেকটাই কমিয়ে দিয়েছে পুজো কর্মকর্তারা। এ বছর পুজো হলেও ছোট করে মেলার আয়োজন করা হয়েছে। সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান মাত্র তিন দিন আয়োজন করেছেন উদ্যোক্তারা। করোনা বিধি মেনেই পুজো করতে উদ্যোক্তাদের এমন উদ্যোগ।। এ বছর ৬৩ তম বর্ষে পড়ল পুজো। বুধবার রাতে পুজোকে ঘিরে প্রচুর ভক্তের সমাগম ঘটে মন্দির প্রাঙ্গণে।

Advertisement

রীতি মেনে চার প্রহরের অনুষ্ঠিত হয় কার্তিক পুজো। এই পুজোর বিশেষ আকর্ষণ হল ষড়ানন-এরপুজো। এই পুজোয় প্রচুর ভক্ত তাঁদের মনস্কামনা পূর্ণ হলে ছোট ছোট কার্তিক মূর্তি দিয়ে থাকেন। এই বছর ৫০ টির বেশি ছোট ছোট কার্তিক মূর্তি দিয়ে পুজো করেন ভক্তরা। শুধু মালদা জেলা নয়, আশেপাশের প্রতিবেশী জেলা থেকেও প্রচুর ভক্তের সমাগম ঘটে এই কার্তিক পুজোয়। পুরাণে কথিত আছে তারকাসুরকে বধ করার জন্য কার্তিকের জন্ম হয়। জন্ম লগ্নে কার্তিক দেখতে খুব সুন্দর ছিল। সেই সময় ৬ জন কৃত্তিকা কার্তিককে লালন-পালনের ইচ্ছা প্রকাশ করে।

৬ জন কৃত্তিকার মনবাসনা পূর্ণ করতে কার্তিক ৬ মাথার রূপ ধারণ করে। সেই থেকেই কার্তিকের আরেক নাম ষড়ানন। দক্ষিণ চাঁদপুর গ্রামে এই রূপেই পূজিত হন দেবসেনাপতি কার্তিক। ঋষিপুর সার্বজনীন কার্তিকপুজো উপলক্ষে দক্ষিণ চাঁদপুরে প্রতি বছর মেলার আসর বসে। তবে গত দুই বছর ধরে করোনা পরিস্থিতি থাকায় মেলা ও অন্যান্য সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনেকটাই কমিয়ে দিয়েছে পুজো কর্মকর্তারা। এ বছর পুজো হলেও ছোট করে মেলার আয়োজন করা হয়েছে। সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান মাত্র তিন দিন আয়োজন করেছেন উদ্যোক্তারা। করোনা বিধি মেনেই পুজো করতে উদ্যোক্তাদের এমন উদ্যোগ।

Advertisement
Continue Reading
Advertisement