প্রতিদিনের ডায়েটে রাখুন তরমুজ, ফল পাবেন হাতেনাতে
Connect with us

ভাইরাল খবর

প্রতিদিনের ডায়েটে রাখুন তরমুজ, ফল পাবেন হাতেনাতে

Rate this post

বেঙ্গল এক্সপ্রেস নিউজ: ক্যালেন্ডারের পাতায় April-May মানেই গ্রীষ্মের তীব্র দাবদাহে অতিষ্ঠ হওয়ার মতন অবস্থা। দরকারি কাজে বাইরে বেরোলে এই সময় যেন আরও ঘেমেনেয়ে একাকার হয়ে ওঠেন প্রায় সকলেই। এই অবস্থায় গরম থেকে মুক্তি পেতে এবং গরমে শরীর ভালো রাখতে তরমুজের জুড়ি মেলাভার।

এমনিতেই যেকোনও মরশুমি ফল-শাকসবজি আমাদের শরীরের জন্য উপকারী। তেমনই গ্রীষ্মকালে শরীর ঠান্ডা রাখতে অন্যতম প্রোটিন সমৃদ্ধ দারুণ একটি উপকারী ফল হল এই তরমুজ। ভ্যাপসা গরমে তরতাজা থাকতে প্রতিদিন যদি নিয়ম করে কিছুটা তরমুজ খাওয়া যায় তাহলে আপনাকে আর কে পাই? উপকার মিলবে হাতেনাতে।

তাহলে আর দেরী কেন? জেনে নিন গ্রীষ্মের মরশুমি ফল হিসেবে আমাদের শরীরের জন্য ঠিক কতটা উপকারী এই রসালো লাল ফল।

Advertisement

গবেষণায় বলছে, গ্রীষ্মকালে আম-জাম,লিচুর মতো রসালো ফল হিসেবে আমাদের সকলেরই খুব প্রিয় আরও একটি ফল হল তরমুজ। এই তরমুজে রয়েছে ভিটামিন ‘এ’, ভিটামিন ‘সি’ সহ আরও প্রচুর পরিমানে প্রোটিন-ভিটামিন। যা আমাদের শরীরকে ঠাণ্ডা রাখে। তাপপ্রবাহের হাত থেকে রক্ষা করে। এছাড়াও হজমের সমস্যা সহ অন্যান্য শারীরিক সমস্যা দূর করতে গ্রীষ্মকালে এক কথায় তরমুজ অনবদ্য।

আরও পড়ুন: ১১ মে থেকে অ্যান্ড্রয়েড ফোনে নিষিদ্ধ হচ্ছে এই সিস্টেম!

১. চিকিৎসকরা বলছেন এই সময় প্রতিদিন নিয়ম করে অন্তত ১ টুকরো তরমুজ খেতে পারলে গরমে হজমের সমস্যা হয় না। তরমুজের রস শরীরের ভিতরে প্রবেশ করে আমাদের ত্বককে আরও স্বাস্থ্যকর বানিয়ে তোলে। এছাড়াও শরীরে ঠিকমতো রক্ত সঞ্চালনে গুরুত্বপূর্ন ভূমিকা পালন করে এই তরমুজ।
২. তরমুজ আপনার ওজন কমাতে অনেক সাহায্য করতে পারে। দ্রুত ওজন কমাতে চাইলে আপনার সকালের নাস্তায় তরমুজ রাখা উচিত। কারণ, এটি আপনাকে সারাদিন হাইড্রেটেড থাকতে সাহায্য করবে। তবে মজার ঘটনা, আপনি কি জানেন, তরমুজের মোট ওজনের ৯২ শতাংশ জল থাকে? গ্রীষ্মকালীন এই ফল একটি নেতিবাচক ক্যালোরিযুক্ত খাবার, যা ক্যালোরি পোড়াতে সাহায্য করে।

Advertisement

৩. তরমুজ পটাসিয়াম এবং ক্যালসিয়ামের একটি বড় উৎস, যা আপনার শরীর থেকে টক্সিন বের করে দিতে সাহায্য করে। ক্যালসিয়াম রক্তে ইউরিক অ্যাসিডের পরিমাণ কমাতে সাহায্য করে, যার ফলে কিডনি রোগের সম্ভাবনা কম হয়। কোষের পার্থক্য প্রক্রিয়ায় ক্যালসিয়াম গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে, কোষের গঠন বজায় রাখে এবং কোষের কার্যাবলী নিয়ন্ত্রণ করে।

আরও পড়ুন: সকাল সকাল মা উড়ালপুলে আগুন, যানজটে চরম ভোগান্তি যাত্রীদের

৪. ব্যথা যন্ত্রণা এবং বডি ম্যাসাল তৈরি করতেও তরমুজ একটি দারুণ উপকারী ফল।

Advertisement

৫. মারণ রোগ ক্যানসার রোধেও সক্রিয় ভূমিকা পালন করে এই তরমুজ। ক্যানসার আক্রান্ত রোগীরা যদি এই ফল নিয়ম করে খান তাহলে এর মধ্যে থাকা অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এবং ভিটামিন সি, যা শরীরে ফ্রি র‌্যাডিক্যাল গঠনের বিরুদ্ধে লড়াই করতে সাহায্য করে। ফ্রি র‌্যাডিক্যাল ক্যান্সারের কারণ হিসেবে পরিচিত। এছাড়াও, তরমুজে উপস্থিত লাইকোপিন প্রোস্টেট ক্যান্সারের ঝুঁকি কমাতে সহায়তা করে। লাইকোপিন ইনসুলিন-গ্রোথ ফ্যাক্টর (IGF) হ্রাস করে ক্যান্সারের ঝুঁকি কমায় বলে মনে করা হয়। যা কোষের বিভাজনে জড়িত একটি প্রোটিন। IGF এর একটি উচ্চ ঘনত্ব ক্যান্সারের সঙ্গে যুক্ত।

আরও পড়ুন: হনুমান জয়ন্তীতে করুন এই কাজগুলি, সমস্ত বাধা যাবে দূর হয়ে

৬. ব্লাড প্রেশারের ঝুঁকি কমায় তরমুজ এবং ত্বককে আরও উজ্জ্বল-মোহময়ী করে তোলে তরমুজের জুস, সরবত প্রভৃতি পানীয়।

Advertisement

তাহলে আর দেরী কেন? আজ থেকেই রূপচর্চা ও শরীর স্বাস্থ্য ভালো রাখতে খাওয়া শুরু করুন তরমুজ।