দীর্ঘদিন ধরে পড়ে থাকা স্টেডিয়ামের কাজ শেষ করার উদ্যোগ নিলেন চাঁচলের বিধায়ক
Connect with us

ভাইরাল খবর

দীর্ঘদিন ধরে পড়ে থাকা স্টেডিয়ামের কাজ শেষ করার উদ্যোগ নিলেন চাঁচলের বিধায়ক

Rate this post

বেঙ্গল এক্সপ্রেস নিউজ: প্রয়াত প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী প্রিয়রঞ্জন দাশমুন্সির সাধের চাঁচল ফুটবল স্টেডিয়ামের অর্ধসমাপ্ত কাজকে এবারে সম্পূর্ণ ও ঢেলে সাজানোর উদ্যোগ নিলেন চাঁচলের তৃণমূল বিধায়ক নীহাররঞ্জন ঘোষ। ইতিমধ্যে ওই স্টেডিয়াম পরিদর্শন করে রাজ্যের ক্রীড়া দফতরের মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাসের সঙ্গে আলোচনাও করেছেন বিধায়ক।

খুব শীঘ্রই চাঁচলের অর্ধসমাপ্ত ফুটবল স্টেডিয়াম পূর্ণাঙ্গ রূপে পেতে চলেছেন চাঁচলের খেলাপ্রেমী মানুষরা। বিধায়কের এমন উদ্যোগে খুশির হাওয়া গোটা চাঁচল জুড়ে। চাঁচল স্টেডিয়ামের শিলান্যাস করেছিলেন প্রিয়রঞ্জন দাশমুন্সি। তাঁর তত্ত্বাবধানে কাজ শুরু হলেও হঠাৎ করে তিনি অসুস্থ হয়ে পড়ায় থমকে যায় নির্মাণ কাজ। তারপর উত্তর মালদার প্রাক্তন সাংসদ মৌসম বেনজির নূরের উদ্যোগে খানিকটা নির্মাণকাজ হয়। কিন্তু এখনও স্টেডিয়ামের কাজ শেষ হয়নি। বর্তমানে চাঁচোল স্টেডিয়াম অসামাজিক কাজকর্মের আতুঁরঘর হয়ে হয়েছে। সন্ধ্যা হলেই বসছে মদ ও জুয়ার আসর বলে অভিযোগ এলাকাবাসীর। এ নিয়ে ক্ষুব্ধ এলাকার বাসিন্দারা। প্রায় এক দশকের বেশি সময় ধরে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় চাঁচলে ফুটবল মাঠে একটি স্টেডিয়াম করা হবে। তারপর প্রিয়রঞ্জন দাশমুন্সির হাত ধরে শুরু হয় নির্মাণকাজ। এই পযন্ত প্রায় ৬টি ব্লকের নির্মাণ কাজ সম্পূর্ণ হয়েছে।

মোট ১২টি ব্লক নির্মাণ করা হবে। কিন্তু তারপরেই বন্ধ হয়ে যায় কাজ। যদিও কিছুটা সময় ব্লক ও মহাকুমা প্রশাসনের তত্ত্বাবধানে স্টেডিয়ামে চত্বরে উচ্চ বাতিস্তম্ভ বসানো হলেও তা জ্বালানো হয় না। যার কারণে সন্ধ্যা হলেই অন্ধকারে ঢু মেরে থাকে গোটা স্টেডিয়াম চত্বর। অবশেষে সেই স্টেডিয়াম চত্বরকে ঢেলে সাজানোর উদ্যোগ নিলেন চাঁচলের বিধায়ক নীহাররঞ্জন ঘোষ। পিডব্লিউডি-এর ইঞ্জিনিয়ারদের সঙ্গে নিয়ে স্টেডিয়াম চত্বর পরিদর্শন করেন বিধায়ক। খুব তাড়াতাড়ি রাজ্যের ক্রীড়ামন্ত্রী অরূপ বিশ্বাসকে রিপোর্ট দেওয়া হবে। এ বিষয় বিধায়ক বলেছেন, ‘চাঁচল স্টেডিয়াম অর্ধসমাপ্ত অবস্থায় পড়ে রয়েছে। এত বড় স্টেডিয়াম পড়ে থাকা সত্ত্বেও বাচ্চারা এখানে খেলতে পারে না।

Advertisement

মাঠের পরিকাঠামোগত অভাব রয়েছে। আমি রাজ্যের ক্রীড়ামন্ত্রী অরূপ বিশ্বাসের সঙ্গে স্টেডিয়ামের অর্ধসমাপ্ত কাজ সমাপ্ত করার প্রস্তাব দিয়েছি। মন্ত্রী আমাকে আশ্বাস দেন দ্রুত এই স্টেডিয়ামকে ঢেলে সাজানো হবে। মন্ত্রীর নির্দেশে পিডব্লিউডি-এর অ্যাসিস্ট্যান্ট ইঞ্জিনিয়ারদের নিয়ে আমি গোটা স্টেডিয়াম চত্বর পরিদর্শন করলাম। সবকিছু দেখেই তারা রাজ্যের কাছে রিপোর্ট দিবে। আশা রাখছি চাঁচল স্টেডিয়ামকে ঢেলে সাজানোর কাজ দ্রুত শুরু হবে।’ মূলত সোডিয়াম চত্বরে আলোর ব্যবস্থা, নিকাশি নালা, পাঁচিল এবং পুরুষ ও মহিলাদের শৌচালয়ের কাজ দ্রুত শেষ করা হবে বলেই জানিয়েছেন বিধায়ক।

Continue Reading
Advertisement