একই পরিবারের তিন জনের মৃতদেহ উদ্ধার

Rate this post

বেঙ্গল এক্সপ্রেস নিউজ: প্রথমে অভাব অনটন আর তার থেকেই শুরু অশান্তি। আর সেই অশান্তি যে কী মর্মান্তিক হতে পারে, তা কোনও মতেই আঁচ করতে পারেননি কোচবিহার জেলার দিনহাটা ২ নম্বর ব্লকের কিশামতদশ গ্রাম পঞ্চায়েতের টিয়াদহ এলাকার গোর্খার পাড়ের বাসিন্দারা।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, মনোরঞ্জন সরকার (৫২) আগে ভিন রাজ্যে পরিযায়ী শ্রমিকের কাজ করতেন। করোনা অতিমারীর সময় নিজের বাড়িতে ফিরে আসেন এবং তারপর থেকে এখানেই দিন মজুরীর কাজ করতেন। ইচ্ছে থাকলেও আর ভিন রাজ্যে যাওয়া হয়নি। এলাকাতেও কাজ সেভাবে পাওয়া যায় না। সেই কারণেই বাড়তে থাকে অভাব। সেই থেকেই শুরু হয় অশান্তি। প্রায়ই স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে অশান্তি লেগে থাকত। শনিবার রাতে দু’জনের মধ্যে প্রবল ঝামেলা শুরু হয়। আশেপাশের লোকজন ঝামেলা শুনতে পেয়েও পারিবারিক ঝামেলা বলে কেউ আর এগিয়ে আসেননি। রবিবার সকালে শোওয়ার ঘর থেকে তিন জনের মৃতদেহ উদ্ধার হয়।

রবিবার দীর্ঘক্ষণ ঘরের দরজা বন্ধ থাকায় স্থানীয়রা দরজা ভেঙে ভেতরে ঢুকতেই তিন জনের মৃতদেহ উদ্ধার করে। মৃতরা হলেন মনোরঞ্জন, তাঁর স্ত্রী শান্তনা বর্মণ সরকার (৩২) এবং তাঁদের একমাত্র ছেলে রনি সরকার (৫)। স্থানীয় সাহেবগঞ্জ থানার পুলিশ এসে মৃতদেহ উদ্ধার করে কোচবিহার মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ময়না তদন্তের জন্য পাঠিয়েছে। একটা গোটা পরিবার শেষ হয়ে যাওয়ায় এলাকা জুড়ে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। প্রাথমিক তদন্তে পুলিশের অনুমান, পারিবারিক অশান্তির জেরে ওই ব্যক্তি প্রথমে স্ত্রী ও ছেলেকে খুন করে নিজে আত্মঘাতী হয়েছেন। ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন
সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ

Next Post

ভাঙা পা নিয়েই ৫০ দিন শ্যুটিং করার মাশুল গুনছেন অভিনেতা অঙ্কুশ!

Sun Oct 24 , 2021
বেঙ্গল এক্সপ্রেস নিউজ: ভাঙা পা নিয়েই ৫০ দিনে ধরে কাজ চালিয়ে গিয়েছিলেন অঙ্কুশ! সিনেমার শ্যুটিঙের পাশাপাশি ছিল রিয়েলিটি শো-এরও কাজ। বর্তমানে প্রায় শয্যাশায়ী অঙ্কুশ। এককথায় দারুণ কাহিল হয়ে পড়েছেন অভিনেতা। নাচের একটি জনপ্রিয় রিয়েলিটি শো-এর শ্যুটিং চলাকালীনই পা ভেঙেছিল। পায়ে ফ্র্যাকচার যে হয়েছিল সেটা জানতেনও। […]

আপনার পছন্দের সংবাদ