স্কুলের ব্যাগে বই নয়, কাফ সিরাপ ঘুরে বেড়াচ্ছে!
Connect with us

দেশের খবর

স্কুলের ব্যাগে বই নয়, কাফ সিরাপ ঘুরে বেড়াচ্ছে!

Rate this post

বেঙ্গল এক্সপ্রেস নিউজ: রাত নামতেই পিঠে ব্যাগ নিয়ে ওরা রওনা দেয় বাংলাদেশ সীমান্তে। ওদের পিঠব্যাগে বই থাকে না। থাকে ১০০ বোতল কাফ সিরাপ। ধরলা নদী পেরিয়ে সেই কাফ সিরাপ পৌঁছে দেওয়া হয় বাংলাদেশ সীমান্ত সংলগ্ন জারিধরলা ও দরিবস গ্রামে।

সেখান থেকে সহজেই তা পৌঁছে যায় বাংলাদেশে। এভাবেই কাফ সিরাপ পাচারের স্বর্গরাজ্য হয়ে উঠেছে দিনহাটার গিতালদহ সীমান্ত। শীত পড়লেই পাচারের রমরমা। কুয়াশার সুযোগে বিএসএফের চোখ এড়িয়ে অনেক সহজে পাচারের কাজ চলে। তাই শীতের রাতে নদীর কনকনে ঠান্ডা জলে নামতে হয় সীমান্ত গ্রামের নিম্নবিত্ত পরিবারের কিশোর থেকে প্রবীণদের। কিছু টাকা রোজগারের আশায়। গিতালদহ-২ গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান মুক্তা বর্মন রায় অবশ্য বলেছেন, দুষ্কৃতীরা সীমান্ত দিয়ে বিভিন্ন জিনিস পাচার করে। তবে এখন গিতালদহ সীমান্ত দিয়ে পাচার অনেকটাই কমেছে।

বিএসএফের কোচবিহার সেক্টরের এক আধিকারিক জানিয়েছেন, সীমান্ত এলাকায় নজরদারি বাড়ানো হয়েছে। কোচবিহার জেলার সীমান্তবর্তী মহকুমা শহর দিনহাটা। মহকুমার তিন দিক, অর্থাৎ নাজিরহাট-২ গ্রাম পঞ্চায়েতের নোটাফেলা থেকে সিতাইয়ে চামটা গ্রাম পঞ্চায়েতের সাতভাণ্ডারী গ্রাম বাংলাদেশ সীমান্ত দিয়ে ঘেরা। অধিকাংশ এলাকায় কাঁটাতারের বেড়া থাকলেও বেশ কিছু জায়গায় সীমান্ত সমস্যার কারণে কাঁটাতারের বেড়া দেওয়া যায়নি। আর সেই সুযোগে ওই এলাকা দিয়ে বাংলাদেশে গোরু থেকে সার, চাল, লবণ, কাফ সিরাপ সবই পাচার হয়।

Advertisement