পর্যটকদের জন্য খুলে দেওয়া হল ঝাড়গ্রামের কোদোপাল পর্যটন কেন্দ্র

জন দেখেছেন : 25
0 0
Read Time:3 Minute, 48 Second

বেঙ্গল এক্সপ্রেস নিউজ: করোনার কারণে দীর্ঘদিন বন্ধ থাকার পর অবশেষে ঝাড়গ্রাম জেলার সাঁকরাইলের কোদোপালের প্রকৃতি ভ্রমন কেন্দ্র পর্যটকদের জন্য খুলে দেওয়া হল। সাঁকরাইলের বিডিও রথীন বিশ্বাস জানিয়েছেন, শুরু হয়ে গেছে কোদোপাল কটেজে থাকার বুকিং।

একদিকে ডুলুং, উল্টো দিকে সুবর্ণরেখা নদী। এর মাঝে গড়ে উঠেছে বিশাল চর। কোদোপালের সবুজে মোড়া সেই চরে সাঁকরাইল প্রশাসনের উদ্যোগে তৈরি হয়েছে এক ভ্রমন কেন্দ্র। সঙ্গে রয়েছে রাত কাটানোর সাজানো গোছানো কটেজ। রাজ্য সরকারের পর্যটন দফতরের সহযোগিতায় সাঁকরাইল পঞ্চায়েত সমিতি ও ব্লক প্রশাসন মিলে চরের ৩২ হেক্টর জায়গার ওপর পর্যটকদের জন্য এই প্রকৃতি ভ্রমন কেন্দ্রটি গড়ে তুলেছে। সাঁকরাইলের বিডিও রথীন বিশ্বাস বলেছেন, ‘২০১১-১২ সালে এই প্রকৃতি ভ্রমন কেন্দ্রটির কাজ শুরু হলেও করোনা পরিস্থিতি আর কিছু সংস্কার মূলক কাজের জন্য ভ্রমন কেন্দ্রটির বুকিং বন্ধ রাখা হয়েছিল। এখন নতুন করে সাজিয়ে তোলার পর পর্যটকদের জন্য খুলে দেওয়া হল।’ ঝাড়গ্রাম শহর থেকে প্রায় ৪৭ কিলোমিটার।

এবং খড়্গপুর থেকে প্রায় ৪২ কিলোমিটার কোদোপাল প্রকৃতি ভ্রমন কেন্দ্র। কোদোপালকে ফলের বাগান, মূল্যবান ভেষজ উদ্ভিদের বাগান, চিলড্রেন পার্ক, খোলা মঞ্চ ও আদিবাসী নারীদের নৃত্যরত মুর্তি আর মাদল বাদনরত পুরুষের মুর্তি দিয়ে সাজিয়ে তোলা হয়েছে। রাতে সৌর আলোতে আলোকিত হয়ে ওঠে পুরো চত্বর। সাজানো চত্বরের দু’দিকে চারটি করে মোট আটটি কটেজ করা হয়েছে। এক একটি কটেজে দু’টি করে শয্যা। নদীর চরে সবুজের মাঝে সপ্তাহের দু’টো দিন কাটানোর দারুন জায়গা।মনোরম এক প্রাকৃতিক পরিবেশ। সূর্যোদয় আর সূর্যাস্তের মুহূর্ত এখানে দারুণ ভাবে উপভোগ করা যায়।

দু’দিকের প্রকৃতিকে মনের মনিকোঠায় ধরে রাখার জন্য রয়েছে দু’টি ওয়াচ টাওয়ার।বিডিও জানিয়েছেন, ওয়াচ টাওয়ারে উঠে লক্ষ্য করা যায় সুন্দর প্রকৃতিকে। এখানে পর্যকটদের জন্য হোম ডেলিভারির ব্যবস্থাও রয়েছে। কটেজের প্রতিদিনের ভাড়া দু’হাজার টাকা। সাঁকরাইলের ব্লক হেড কোয়ার্টার রোহিনী। সেখান থেকে মাত্র দু’কিলোমিটার দূরে কোদোপাল প্রকৃতি ভ্রমন কেন্দ্র। ফেয়ার ওয়েদার সেতুর কাজ চলছে। মাঝের ডুলুং নদী নৌকায় পেরিয়ে চরে পৌঁছানো যায়। পুরো এলাকাটা ঘুরে দেখার জন্য এখানে টোটোর ব্যবস্থা আছে। এখন বুকিংয়ের জন্য সাঁকরাইল পঞ্চায়েত সমিতির ৮৭৯০২৪৪৫০১ এই নম্বরে ফোন করা যেতে পারে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Next Post

মালদায় চলন্ত ট্রেন থেকে পড়ে মৃত্যু এক পরিযায়ী শ্রমিকের

Fri Nov 19 , 2021
বেঙ্গল এক্সপ্রেস নিউজ: চলন্ত ট্রেন থেকে পড়ে বাঁ পা ও বাঁ হাত কাটা পড়ে মালদা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা চলাকালীন মৃত্যু হল এক পরিযায়ী শ্রমিকের। মর্মান্তিক ঘটনাটি ঘটেছে বৃহস্পতিবার রাতে গাজোল থানার একলাখী স্টেশন এলাকায়। মৃত শ্রমিকের নাম ব্রজেন মার্ডি। বয়স ৩০বছর। বাড়ি গাজোল থানার […]