আজও ছাতিনাকান্দি গোপীবাবুর বাড়িতে কামান দাগিয়ে শুরু হয় সন্ধিপুজো

জন দেখেছেন : 14
0 0
পড়তে সময় লাগবে :2 মিনিট, 8 সেকেন্ড

বেঙ্গল এক্সপ্রেস নিউজ : পারিবারিক রীতি মেনে প্রায় ৩৫০ বছর ধরে অষ্টমীর সন্ধিপুজোতে কামান দেগে পুজো শুরু হওয়ার পরম্পরা আজও চলে আসছে। এবছরও তার ব্যতিক্রম হল না। প্রতি বছরের ন্যায় এবছরও মুর্শিদাবাদের ছাতিনাকান্দি গোপীবাবুর বাড়িতে কামান দেগে সন্ধিপুজোর সূচনা হল। ছাগবলির আগেও প্রথা মেনে একটি কামান ফাটান পরিবারের সদস্যরা। জোড়া কামান ফাটানো দেখতে এলাকাবাসী ভিড় জমিয়েছিল ছাতিনাকান্দি গোপীবাবুর বাড়ি প্রাঙ্গণে। তাদের উৎসাহ-উদ্দীপনা ছিল চোখে পড়ার মতো।

কথিত আছে আগে এই গোপীবাবুর বাড়ির কামানের শব্দ শুনে আশেপাশের গ্রামের দুর্গাপুজো শুরু হতো। সব মিলিয়ে মহাসমারোহে ছাতিনাকান্দি গোপী বাবুর বাড়ির দুর্গাপুজোর সন্ধি পুজোর দিন কামান ফাটানোর অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হলো এবছর। পরিবারের সদস্য বিমান বিশ্বাস ও গোলক বিশ্বাস বলছিলেন, ‘৩০০ বছরেরও বেশি সময় ধরে সন্ধি পুজোর আগে জোড়া কামান দাগা হয়। এটা আমাদের বাড়ির পুজোর পরম্পরা। আমরা আমাদের বাবা-ঠাকুরদাদেরও এই রীতি মানতে দেখেছি। এখন আমরা করছি। আমাদের ভবিষ্যৎ প্রজন্মও সেটা পালন করবে। প্রতি বছর পুজোর দিনে কামানগুলোকে প্রস্তুত করা হয়। দুটি কামানে প্রায় ৫০০ গ্রাম বারুদ লাগে। ঝড়-বৃষ্টি যাই হোক না কেন মায়ের আশীর্বাদে এখনও পর্যন্ত কোনও দিন কামানের গোলা মিস হয়নি।’

সংবাদটি শেয়ার করুন

Next Post

কাশিমবাজার ছোট রাজবাড়ির দুর্গা পুজোয় বাড়ির বধূরা সপ্তমী থেকে নবমী কুমারী পুজো করেন

Thu Oct 14 , 2021
বেঙ্গল এক্সপ্রেস নিউজ : প্রাচীন ঐতিহ্য ও নিয়ম মেনে নিষ্ঠা সহকারে মুর্শিদাবাদ জেলায় যে কয়েকটি রাজা, জমিদার ও বনেদি বাড়িতে কয়েক শতাব্দী ধরে দুর্গা পুজো হয়ে আসছে তাদের মধ্যে কাশিমবাজার ছোট রাজবাড়ির দুর্গা পুজো অন্যতম। পূর্ব বাংলার সরাইল পরগনার প্রথম জমিদার জগবন্ধু রায়ের নিবাস ছিল […]