রিসর্ট মালিকদের আন্দোলনের জেরে ডুয়ার্সে বন্ধ হাতি সাফারি

জন দেখেছেন : 37
0 0
পড়তে সময় লাগবে :3 মিনিট, 22 সেকেন্ড

বেঙ্গল এক্সপ্রেস নিউজ: ঘুরতে যাওয়ার ক্ষেত্রে পর্যটকদের পছন্দের তালিকায় রয়েছে ডুয়ার্স। ডুয়ার্সের জঙ্গল, নদী, পাহাড়ে প্রতিবছর প্রচুর পরিমাণে পর্যটক আসেন। আর এই ডুয়ার্সে বুধবার থেকেই চালু হচ্ছে হাতি সাফারি। তবে হাতি সাফারিতে বাদ সেধেছে টিকিট কাউন্টারকে কেন্দ্র করে আন্দোলন।

জানা গিয়েছে, শুধুমাত্র লাটাগুড়ির টিকিট কাউন্টার থেকেই একমাত্র গরুমারার গাছবাড়িতে হাতি সাফারির জন্য টিকিট পাওয়া যাবে। আর ডুয়ার্সের মূর্তিতে ফের একটি টিকিট কাউন্টার খোলার জন্য আন্দোলনে নেমেছে রিসোর্ট মালিকদের সংগঠন। গতকাল থেকে এই আন্দোলনে সামিল হয়েছেন তারা। ইতিমধ্যেই তাঁরা হুমকি দিয়ে রেখেছেন যদি মূর্তিতে টিকিট কাউন্টার খোলা না হয় তাহলে তারা হাতি সাফারির জন্য পর্যটকদের গাছবাড়িতে ঢুকতে দেবেন না। তাঁদের আরও দাবি, মূর্তি সহ ধুপঝোরা, বাতাবাড়ি, মাথাচুলকা, চালসা, মঙ্গলবাড়ি এলাকার পর্যটকদের হাতি সাফারির জন্য প্রায় ২০ কিলোমিটার দূরে লাটাগুড়ি গিয়ে টিকিট কাটতে পর্যটকদের সমস্যায় পড়তে হবে।

এতে যেমন পর্যটকদের খরচ বাড়বে, তেমনই সময় নষ্ট ও হয়রানিও হবে। অন্যদিকে, মূর্তি টিকিট কাউন্টার পাশেই গাছবাড়ি। তাই মূর্তি টিকিট কাউন্টার থেকে হাতি সাফারির টিকিট দিতে হবে। তাই সোমবারের পর মঙ্গলবারও আন্দোলনে শামিল হয় রিসর্ট মালিকদের সংগঠন গরুমারা টুরিজম ওয়েলফায়ার অ্যাসোসিয়েশন। মঙ্গলবার ওই সংগঠন সহ মূর্তির টোটো ইউনিয়ন, ছোট গাড়ির চালক সংগঠনের প্রতিনিধিরাও গরুমারা গেটে বিক্ষোভ দেখান। গরুমারা সাউথ রেঞ্জের রেঞ্জারকে এবিষয়ে স্মারকলিপিও প্রদান করা হয়।

এদিকে আন্দোলনের জেরে আপাতত গাছবাড়িতে হাতি সাফারি স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বনদফতর। এ বিষয়ে গরুমারা টুরিজম ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশনের সম্পাদক দেবকমল মিশ্র জানান, পর্যটকদের জন্য হাতি সাফারি চালু করার দাবি তাঁদের দীর্ঘদিনের। হাতি সাফারি বন্ধ হোক তা তাঁরা চান না। তবে হাতি সাফারির জন্য গাছবাড়ির টিকিট মূর্তি টিকিট কাউন্টার থেকে দিতে হবে। এদিনের এই কর্মসূচিতে উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের সভাপতি তাজমল হক সহ আরও অনেকে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Next Post

শিতলকুচিতে গাছ থেকে শিক্ষকের ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার

Tue Nov 23 , 2021
বেঙ্গল এক্সপ্রেস নিউজ: শিক্ষকের ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার ঘিরে চাঞ্চল্য ছড়াল। ঘটনাটি ঘটেছে কোচবিহারের শীতলকুচি ছোট শালবাড়ী এলাকায়। ছোট শালবাড়ী গ্রামের বাসিন্দা পলাশ প্রামানিক পেশায় স্কুল শিক্ষক। মঙ্গলবার সকালে তাঁর বাড়ির বাঁশঝাড়ের কোনায় একটি গাছে তাঁর দেহ ঝুলন্ত অবস্থায় দেখা যায়। সকালে ধান কাটার জন্য যারা […]