'বাংলা না জানলে বিহারে গিয়ে চিকিৎসা করান'! সরকারি হাসপাতালের চিকিৎসকের মন্তব্যকে ঘিরে বিতর্ক
Connect with us

বাংলার খবর

‘বাংলা না জানলে বিহারে গিয়ে চিকিৎসা করান’! সরকারি হাসপাতালের চিকিৎসকের মন্তব্যকে ঘিরে বিতর্ক

Rate this post

বেঙ্গল এক্সপ্রেস নিউজ:  ‘বাংলা না জানলে বিহারে গিয়ে চিকিৎসা করাও’। সরকারি হাসপাতালের এক চিকিৎসকের বিরুদ্ধে রোগীকে এই পরামর্শ দেওয়ার অভিযোগ উঠল। যা নিয়ে ইতিমধ্যেই শুরু হয়ে গিয়েছে বিতর্ক।

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় এই ঘটনাটি ঘটেছে কল্যাণীর জেএনএম হাসপাতালে। এরপর সেখানকার জরুরি বিভাগের চিকিৎসক, নার্স ও স্বাস্থ্যকর্মীদের সঙ্গে বচসা ও হাতাহাতিতে জড়িয়ে পড়েন রোগীর পরিবারের সদস্যরা। রাতের দিকে কল্যাণী থানায় হাসপাতালের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করে রোগীর পরিবার। পাল্টা রোগীর পরিবারের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

জানা গিয়েছে, গত মঙ্গলবার হাসপাতালে সিজার হওয়ার কথা ছিল উত্তর ২৪ পরগনার জগদ্দল- কাঁকিনাড়ার বাসিন্দা ওই অন্তঃসত্ত্বা মহিলার। সেই সময় এক চিকিত্‍সক অন্তঃসত্ত্বাকে কোনও সমস্যা হচ্ছে কিনা জানতে চাওয়ায় তিনি হিন্দিতে কথা বলতে থাকেন। তখনই সেই কর্তব্যরত চিকিত্‍সক তাঁকে বাংলায় কথা বলতে বলেন। কিন্তু সেই অন্তঃসত্ত্বা মহিলা বলেন, তিনি বাংলা জানেন না।

Advertisement

আরও পড়ুন: বেপরোয়া গতির জের! মর্মান্তিক ঘটনা সেক্টর ফাইভে

অভিযোগ, তখনই সেই চিকিত্‍সক ওই অন্তঃসত্ত্বা মহিলাকে বলেন বিহারে গিয়ে চিকিত্‍সা করতে। এরপরই এই ঘটনা নিয়ে প্রসূতির পরিবারের সঙ্গে বচসা শুরু হয় রোগীর পরিবারের। গোটা ঘটনাটা মোবাইলে ভিডিও রেকর্ড করেন রোগীর পরিবারের এক সদস্য। অভিযোগ, চিকিৎসক, নার্সরা তখন মোবাইলটি কেড়ে নিতে যান। তখনই দুই পক্ষের মধ্যে ধাক্কিধাক্কি শুরু হয়। তারপরে হাসপাতালে চিকিৎক ও স্বাস্থ্যকর্মীদের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দায়ের করেন রোগীর পরিবার।

আরও পড়ুন: ‘কথাবার্তা বলার একটা সীমা থাকা উচিত’, দিলীপ ঘোষের নিশানায় মুখ্যমন্ত্রী

Advertisement

অপর দিকে, চিকিৎসার কাজে বাধা দেওয়া এবং বিনা অনুমতিতে মোবাইলে ছবি তোলার পাল্টা অভিযোগ জানিয়ে রোগীর পরিবারের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। উভয় পক্ষের অভিযোগের ভিত্তিতে ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে কল্যাণী থানার পুলিশ।